Monday, April 27, 2015

অনলাইন প্রচারণায় নতুন মাত্রা



সময় আর মাত্র এক দিন। আগামীকাল ভোট। ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের মেয়র পদপ্রার্থীদের ঘুম নেই। গরমে ঘেমে-নেয়ে চালিয়েছেন শেষবেলার প্রচারণা। গতকাল ছিল নির্বাচনী প্রচারণার শেষ দিন। ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে, পাড়ায়-মহল্লায় তাঁরা ছুটেছেন ভোটারের দুয়ারে দুয়ারে। লিফলেট বিলি হয়েছে, ব্যাপক গণসংযোগ হয়েছে; পোস্টারিং-মাইকিংও চলেছে।

প্রার্থীরা মূলধারার গণমাধ্যমে তো বটেই, বিকল্প গণমাধ্যম হিসেবে খ্যাত ফেসবুকেও সমান সোচ্চার ছিলেন। নির্বাচনী প্রচারণায় এই প্রথমবারের মতো অনলাইনকে গুরুত্ব দিয়ে দেখেছেন প্রার্থীরা। এ ক্ষেত্রে দক্ষিণের চেয়ে উত্তরের মেয়র পদপ্রার্থীরা এগিয়ে।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে মেয়র পদপ্রার্থীরা মাঠের প্রচারণায় পর্যাপ্ত সময় দিয়েছেন; তাঁরা সময় দিয়েছেন রেডিও, টিভি ও সংবাদপত্রকেও। দিনভর গণসংযোগের পর সন্ধ্যায় তাঁরা হাজির হয়েছেন টেলিভিশনের টক শো, আলোচনা বা সংবাদ বিশ্লেষণের অনুষ্ঠানে। নগরবাসীর বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের কথা বলেছেন এবং পৃথক রাজনৈতিক চিন্তা ও কর্মসূচি প্রকাশ করেছেন তাঁরা।

ফাঁকে ফাঁকে সামাজিক ও পেশাজীবী সংগঠনের গোলটেবিল বৈঠকেও হাজির থেকেছেন তাঁরা। এসবের সঙ্গে অনলাইন মিডিয়াকেও গুরুত্ব দিয়েছেন অনেক মেয়র পদপ্রার্থী। বলা যায়, অনলাইন মিডিয়াকে প্রচারণার মাধ্যম হিসেবে এবারই প্রথম আমলে নেওয়া হয়েছে। প্রার্থীদের নামে ফেসবুকে নির্বাচনী প্রচারসংক্রান্ত একাধিক ফ্যান পেজ খোলা হয়। এসব পেজ থেকে প্রতিদিন একাধিকবার জানানো হচ্ছে, প্রার্থীর প্রচারণাবিষয়ক হালনাগাদ তথ্য; জানানো হয়েছে ভোট প্রয়োগের আহ্বান। প্রচার ও গণসংযোগের ছবি এবং ভিডিওবার্তায় তাঁরা অনলাইনে মুখোমুখি হয়েছেন ভোটারদের।

ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনে যেসব মেয়র পদপ্রার্থী অনলাইনকেও গুরুত্ব দিয়ে নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়েছেন তাঁদের বিষয়েই এ প্রতিবেদন।

আনিসুল হক : আওয়ামী লীগ ও ব্যবসায়ীদের সমর্থনপুষ্ট ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র পদপ্রার্থী আনিসুল হকের নামে ফেসবুকে রয়েছে একাধিক নির্বাচনী পেজ। 'আনিসুল হককে ভোট দিন' নামের পেজে দেখা যায়, রঙিন ডিজিটাল পোস্টারে 'টেবিল ঘড়ি' প্রতীকে ভোট প্রার্থনা করে এই প্রার্থী বলছেন, 'আমার কাছে এই নির্বাচন শুধু নির্বাচন নয়, একটি পরিচ্ছন্ন-সবুজ-মানবিক নগর গড়ার বার্তা; একটি সমাধান যাত্রা।'

তাবিথ আউয়াল : ঢাকা উত্তর সিটি নির্বাচনে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী তাবিথ আউয়ালও সোচ্চার ফেসবুকে। তাঁর নামেও ফেসবুকে একাধিক ফ্যান পেজ রয়েছে। 'তাবিথ আউয়াল ফর মেয়র' নামের একটি পেজে তিনি খালেদা জিয়ার গাড়িবহরে হামলার নিন্দা করে ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন। এ পেজে তাঁর নির্বাচনী প্রচারণার হালনাগাদ তথ্য ও আগাম কর্মসূচি জানিয়ে দেওয়া হয়।

'নতুন প্রজন্ম, নতুন ঢাকা'- এই স্লোগানে 'বাস' প্রতীকে ভোট প্রার্থনা করেন তাবিথ।

ক্বাফী রতন : ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে সিপিবি-বাসদ সমর্থিত মেয়র পদপ্রার্থী আবদুল্লাহ আল ক্বাফীও (ক্বাফী রতন) ফেসবুকে সক্রিয়। 'হাতি' প্রতীক এবং 'সবার জন্য বাসযোগ্য ও মানবিক ঢাকা চাই'- স্লোগান নিয়ে নির্বাচনের মাঠে নামেন তিনি। তাঁর নামের ফ্যান পেজে নির্বাচনী প্রচারণার নানা ছবি ও ভিডিও ক্লিপিং আপলোড করা হয় নিয়মিত।

জোনায়েদ সাকি : ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের আরেক মেয়র পদপ্রার্থী গণসংহতি আন্দোলন সমর্থিত জোনায়েদ সাকি। 'টেলিস্কোপ' প্রতীক নিয়ে ভোটের মাঠে রয়েছেন; পাশাপাশি ফেসবুকেও সোচ্চার তিনি। তাঁর নির্বাচনী স্লোগান- 'আগামীর ঢাকা, সবাই মিলে'। এ নামেই ফেসবুকে খোলা হয়েছে তাঁর পেজ। সেখানে নির্বাচনী প্রচারণার নানা তথ্য, ছবি ও ভিডিও ক্লিপিংয়ের পাশাপাশি ছোট ছোট পোস্ট দিয়ে বিবৃতিও দেওয়া হয়। এ পেজের একাধিক ফটো পোস্টে দেখা যায়, তাঁর পক্ষে অভিনেত্রী বন্যা মির্জা ও সংগীতশিল্পী কৃষ্ণকলি ইসলাম প্রচারণা চালাচ্ছেন। পেজটির পক্ষ থেকে খালেদা জিয়ার গাড়িবহরে হামলা ও ভাঙচুরের নিন্দা জানানো হয়।

সাঈদ খোকন : ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী সাঈদ খোকন। প্রয়াত মেয়র মোহাম্মদ হানিফের ছেলে সাঈদের নামে রয়েছে একাধিক ফেসবুক পেজ। 'ইলিশ' নির্বাচনী প্রতীক নিয়ে তিনি সোচ্চার ফেসবুকেও। তাঁর নামের একটি পেজের প্রোফাইল ছবিতে দেখা যায়, তিনি অঙ্গীকার করছেন, 'দুর্নীতিমুক্ত সিটি করপোরেশন, পরিচ্ছন্ন ও নিরাপদ ঢাকা।'

মির্জা আব্বাস : ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে বিএনপি সমর্থিত মেয়র পদপ্রার্থী মির্জা আব্বাস লড়ছেন 'মগ' প্রতীক নিয়ে। মামলা-মোকদ্দমার কারণে আত্মগোপনে রয়েছেন সাবেক এই মেয়র। তাঁর পক্ষে মাঠে প্রচারণা চালান স্ত্রী আফরোজা আব্বাস। মির্জা আব্বাসের নামেও একাধিক ফেসবুক ফ্যান পেজ খোলা হয়েছে। একটি পেজে দেওয়া একটি ফটো পোস্টে দেখা যায়, 'মগ' প্রতীকে ভোট প্রার্থনা করে বলা হচ্ছে, 'মেয়র পদপ্রার্থী মির্জা আব্বাসের নির্বাচনী ইশতেহার : নিরাপদ ঢাকা চাই, পরিচ্ছন্ন ঢাকা চাই।' সাদাকালো এই ফটো পোস্টে তাঁর নির্বাচনী স্লোগান 'আদর্শ ঢাকা আন্দোলন'-এর কথাও তুলে ধরা হয়েছে। প্রকাশ করা হয়েছে নির্বাচনী ইশতেহারের সফট কপি।

বজলুর রশিদ ফিরোজ : সিপিবি-বাসদ সমর্থিত প্রার্থী বজলুর রশিদ ফিরোজ ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে মেয়র পদে লড়ছেন 'টেবিল' প্রতীক নিয়ে। ফেসবুকে তাঁর নিজস্ব আইডি বা ফ্যান পেজ নেই। তাঁর দল বাসদের ফেসবুক পেজ 'সোশ্যালিস্ট পার্টি অব বাংলাদেশ'-এ নিয়মিত তাঁর পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণা চালানো হয়। এ পেজে মূলত প্রকাশ করা হয় বিভিন্ন দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের অনলাইন সংস্করণের নিউজ লিংক। টেলিভিশন অনুষ্ঠানে দেওয়া ফিরোজের নির্বাচনী বক্তব্য তুলে ধরা হয় ভিডিও ক্লিপিংয়ের মাধ্যমে।

- See more at: http://www.kalerkantho.com/print-edition/city-election-2015/2015/04/27/215201#sthash.unDGLB1R.cUbOCqh8.dpuf