Sunday, March 1, 2015

অভিজিৎ কন্যার নোট:: মুক্তমনার সংগ্রাম চলবেই

'আমার বাবা বরাবরই সুন্দর পৃথিবী গড়ে তুলতে মত প্রকাশের স্বাধীনতায় সোচ্চার ছিলেন।' শব্দগুলো লিখেছেন মৌলবাদী হামলায় নিহত ব্লগার অভিজিৎ রায় ও গুরুতর আহত রাফিদা আহমেদ বন্যার যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী কন্যা তৃষ্ণা। বাবাকে হত্যার ১৫ ঘণ্টা পর তাঁর খুন সম্পর্কিত একটি অনলাইন নিউজের লিংক দিয়ে নিঃসঙ্গ মেয়েটি ফেসবুক নোটে জানিয়েছেন তাঁর সাহসী এবং কষ্টের আরো কথা।

প্রসঙ্গত, মুক্তমনা ডটকম ব্লগের প্রতিষ্ঠাতা ও বিজ্ঞান লেখক অভিজিৎ রায়ের দ্বিতীয় স্ত্রী রাফিদা আহমেদ বন্যা। তৃষ্ণা তাঁর প্রথম পক্ষের সন্তান।
'অপচিন্তার বিরুদ্ধে মুক্তমনার সংগ্রাম চলবেই', এ কথা উল্লেখ করে ইংরেজিতে তৃষ্ণা লিখেছেন :

'আমার বাবা নামকরা একজন বাঙালি লেখক। বিজ্ঞান ও নাস্তিক্যবাদ সম্পর্কিত তাঁর বইগুলো খুব জনপ্রিয়। জাতীয় বইমেলায় (অমর একুশে গ্রন্থমেলা) আমার বাবার বই প্রকাশ উপলক্ষে মাকে নিয়ে গত সপ্তাহে তিনি বাংলাদেশে যান। ১৫ ঘণ্টা আগে ইসলামী মৌলবাদীরা তাঁকে ছুরিকাঘাতে খুন করেছে। ওই একই হামলায় আমার মা গুরুতর আহত হয়ে এখনো হাসপাতালে ভর্তি। আবার বাবার হত্যার খবর এখন বাংলাদেশের গণমাধ্যমের শিরোনাম।'

তৃষ্ণা লিখেছেন, 'আমার এই বক্তব্য শেয়ার করার উদ্দেশ্য যতটা না আমার জন্য, তার চেয়ে অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ আমার বাবার জন্য। তিনি বরাবরই সুন্দর পৃথিবী গড়ে তুলতে মত প্রকাশের স্বাধীনতায় ছিলেন সোচ্চার।'

'যখন আমার ছয় বছর বয়স, তখন মায়ের সঙ্গে বাবার পরিণয়। এরপর গত ১২ বছর ধরে আমরা একসঙ্গে। বাবা ছিলেন আমার বন্ধু, আমার নায়ক, আমার আত্মবিশ্বাসের পরীক্ষিত মানুষ, আমার নাচের সঙ্গী (যদিও নাচে আমরা দুজনই বেশ অপটু)। বাবা সব সময়ই আমাকে জ্ঞানে সমৃদ্ধ, নিঃশঙ্কচিত্ত ও বলিষ্ঠ হতে বলতেন, নতজানু হতে নয়।'

তৃষ্ণা আরো লিখেছেন, 'বাবা খুন হওয়ার পর আমি মর্মাহত ও নিঃসঙ্গ হয়েছি, একথা বললে আসলে খুব কমই বলা হয়। কিন্তু তাঁর এই হত্যাকাণ্ডের মধ্য দিয়ে সুন্দর পৃথিবী গড়ার সংগ্রাম স্তব্ধ করা যাবে না। তিনি আমাকে মুক্তমনার সংগ্রাম চালিয়ে যাওয়ার যে শিক্ষা দিয়েছেন, সে সংগ্রাম চলবেই। বাবা, আমি তোমাকে ভালোবাসি। সবকিছুর জন্য তোমাকে ধন্যবাদ।'

- See more at: http://www.kalerkantho.com/print-edition/news/2015/03/01/193371#sthash.EZIMaO14.dpuf